চতুর্থ অধ্যায় - নেটওয়ার্কিং

Last updated 3 months ago

অধ্যায় - চার

নেটওয়ার্কিং

নেটওয়ার্কিং এর প্রশ্নে বলা যায় যে, সম্ভবত নেটওয়ার্ক সম্পর্কিত এমন কোন কাজ নেই যা লিনাক্স দিয়ে করা যায় না । ফায়ারওয়াল, রাউটার, নেম সার্ভার, এনএএস বক্স এবং বিভিন্ন রকম নেটওয়ার্কিং সিস্টেম তৈরিতে সাধারণত লিনাক্স ব্যবহৃত হয়। নেটওয়ার্কিং সার্ভিসেস যেমন প্রচুর তেমনি নেটওয়ার্ক কনফিগার এবং কন্ট্রোল করার জন্য কমান্ডও প্রচুর । সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত কিছু কমান্ড এর প্রতি আমরা আলোকপাত করব । আমরা মূলত নেটওয়ার্ক মনিটরিং এবং ফাইল আদান-প্রদান করতে ব্যবহৃত কমান্ডগুলো আলোচনা করব । এছাড়াও ssh সম্পর্কে জানব । ssh মূলত রিমোট লগইন এ ব্যবহৃত হয়।

শুরু করার আগে নেটওয়ার্কিং এর খুব প্রাথমিক কিছু জিনিসের সহজবোধ্য ধারণাটা নিয়ে নেওয়া যাক।

আইপি এড্রেস (IP Address)

আইপি এড্রেস হচ্ছে নেটওয়ার্কে ব্যবহৃত আপনার মূল ঠিকানা। এটি সংখ্যায় প্রকাশ করা হয়। আপনি যখন ইন্টারনেটে সংযুক্ত হন, আপনাকে একটি আইপি এড্রেস দেওয়া হয়। আইপি এড্রেস ইউনিক। অর্থাৎ প্রত্যেকের আইপি এড্রেস আলাদা আলাদা।

হোস্টনেম (Hostname)

হোস্টনেম হচ্ছে নেটওয়ার্কের মধ্যে আপনার ডিভাইসটি যে নামে পরিচিত হবে সেটি। সাধারণত লোকাল সার্ভারে আপনার দেওয়া নামটিই ব্যবহৃত হয় তবে ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েবে সাধারণত তারপর ডোমেইন নেম যুক্ত হয় বা ডোমেইনটিই হোস্টনেম হয়।

ডোমেইন নেম (Domain Name)

সহজ করে বললে ওয়েবসাইটের যে ইউআরএল আপনি মনে রাখেন সেটিই ডোমেইন নেম। একটি ডোমেইন তখনি কেবলমাত্র হোস্টনেম হতে পারে যখন তার জন্য একটি আইপি এড্রেস বরাদ্দ থাকে।

ইউআরআই (URI)

ইন্টারনেটে কোনো একটা নির্দিষ্ট রিসোর্স যেমন কোনো ফাইল বা ছবি বা যেকোনোকিছুর ঠিকানা হচ্ছে URI। ইউআরআই দুরকম। URL এবং URN। ইউআরএন হল কোনো নাম দিয়ে প্রকাশের ব্যবস্থা। এর ব্যবহার কম। যেমন আইএসবিএন এ প্রত্যেকটি বইয়ের একটি করে ইউআরএন আছে। ইউআরএল বেশ জনপ্রিয়। দৈনন্দিন কাজে এটিই ব্যবহার করি আমরা। ইন্টারনেট ব্রাউজ করার সময় প্রতিটা নতুন পেজ লোডের সাথে সাথে একটা করে ইউআরএল দেখতে পান এড্রেসবারে।